Welcome to MN soft BD

Friday, November 6, 2015

Md Munna MN

আপনার ফেসবুক হ্যাক হয়ে পর্ণো লিংক বা ছবি শেয়ার হচ্ছে? কেন হয় এ নিয়ে কিছু তথ্য

সসালামু‘আলায়কুম । সবাই কেমন আছেন ? আজ ফেসবুক নিয়ে লেখলাম। এ পোষ্টটি লেখার অন্যতম কারণ হল আমার কিছু বন্ধু এ ব্যপারে তথ্য জানতে চেয়েছিল। যাই হোক আজ পোষ্টটি সবার জন্য। পৃথিবীতে সামাজিক যোগাযোগ সাইটের মধ্য বিশাল অবদান রাখছে ফেসবুক।পরিবার থেকে শুরু করে বিশ্ববন্ধুত্বের মাধ্যম এখন ফেসবুক ।আর মাঝে মাঝে ফেসবুকে এমন কিছু কান্ড টে যা অনেকের অজানা। আর যারা নতুন নতুন ফেসবুক ব্যবহার করে তাদের ক্ষেত্রে বেশি দেখা যায়। আমরা আমাদের বন্ধুদের প্রোফাইলে বিভিন্ন সময় অশ্লীল ছবি বা ভিডিও লিংক দেখতে পায়। যদিও বা বন্ধু এ ব্যপারে কিছু জানেন। তা কি ভাবে হল কখন হল তাও বলতে পারেনা। আর আমরা যারা এ ব্যপারে কম বুঝি তারা বন্ধুকে দোষ বলে থাকি। যেমন বন্ধুর(ফেসবুক ব্যবহারকারী) ব্যপারে বিভিন্ন খারাপ মন্তব্য এবং খারাপ দিক মনে করে থাকি। এধরনের কাজ অনেকে ইচ্ছাকৃত ভাবেও করে থাকে। আর যারা ইচ্ছাকৃতভাবে করেনা তাদের ইডি হ্যাক হয়ে এমনটা হয়ে থাকে। আমি ই ব্যপারে বিভিন্ন ওয়েব সাইট এবং ফেসবুক হ্যাক নিয়ে ঘাটাঘাটি করে কিছু তথ্য খুজে পেলাম। যার প্রধানত কারণ হয়ে দাড়াআমাদের ব্যবহার করা ফেসবুক প্যান আপস। আমি নিম্মে কয়েকটি প্যানআপস এর চিত্র দিলাম।

 চিত্রগুলো লক্ষ্য করলে দেখা যায় আমরা বিভিন্ন সময় এ সব আ্যপস দিয়ে ফেসবুকের বিভিন্ন ধরণের ছবি টেইমলাইন ইত্যাদি সাজায়। কিন্তু এটা মুটেও ঠিক না। আপনি যখন এ অ্যাপসএ ক্লিক করেন সর্বপ্রথম আপনার একাউন্ট লগইন করতে বলে। নিচের চিত্রটি দেখুন- 
আমরা এ আ্যপসগুলোতে গেলে দেখা যায় আমাদের ফেসবুক পারমিট ছাড়া হয়না। আমাদের একাউন্ট লগইন করলে দেখা যায় আমরা সুন্দর করে একটি চিত্র পেয়ে যায় যেমন www.photogap.me এ ঠিকানায় গেলে আপনার বিভিন্ন বছরের ছবি একসাথে করে দিবে।পরে আপনি তা আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করে থাকেন । যখন আমাদের ফেসবুক আইডি আপসে সাইন-ইন করতে হয় তখন সাইন করা হলে আপনার আইডি এন্ড পাসওয়ার্ড অটো তাদের এডমিন সার্ভারে জমা হয়ে যায় এবং তার বিনিময়ে আপনি সুন্দর সুন্দর টেইমলাইন সাজানোর চিত্র পেয়ে যায়। এতে যাদের খারাপ উদ্দেশ্য বিরাজ করে তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন আইডিতে এসব পর্ণো ছবি বা লিংক শেয়ার করে । এ ছাড়াও আপনি গুগুলে চার্স দিলে হাজার হাজার ফেসবুক ফ্যান অ্যাপস এর ঠিকানা পাবেন।

তাছাড়া নিচের দেওয়া উল্লেখিত কিছু কারণেও এ সব ঘটে থাকে-

১। আমরা যারা ফেসবুক ইউচ করি তারা অনেকে বিভিন্ন মোবাইল নাম্বার দিয়ে আই.ডি তৈরী করে থাকি। এসব আই.ডি ১০০% ভেরিপিকেশন হয়না বিধায় খুব সহজে আই.ডিটি নষ্ট বা হ্যাক হয়ে যায়।
২। আমরা অনেকে ফেসবুক আইডি খোলার সময় বা ব্যবহারের সময় গোফনিয়তা বজায় রাখিনা যার কারণে অন্যরা আই.ডি পাসওয়ার্ড জেনে যায়।
৩। কোন সাইবার ক্যাফে বা অন্যের কম্পিউটারে, মোবাইলে ফেসবুক আইডি দেওয়ার সময় keep me logged in এ লেখায় ঠিক মার্ক থাকলে বা ব্রাউজারে পাসওয়ার্ড রিমেম্বার এনাবল থাকলে তবে ঐ কম্পিউটারের আপনার আইডি পাসওয়ার্ড অটো হয়ে থাকবে। যার কারণে অন্যরা সহজে আইডি হ্যাক করতে পারবে।
৪। আইডি পাসওয়ার্ড আমরা অনেকে ব্রাউজারের রিমেম্বার করে রাখি এতে কম্পিউটার যদি যৌথ ব্যবহারকারী হয় তাহলে আইডি যে কোন সময় হ্যাক হতে পারে।
৫। আমরা সাধারণত পাসওয়ার্ড হিসাবে নিজের মোবাইল নং এবং দুর্বল পাসওয়ার্ড ইউচ করে থাকি যার কারণে সবাই সহজে পাসওয়ার্ড জেনে যায়। এতেও আইডি হ্যাক করা হয়।
৬। ফেসবুক আইডি খোলার পর একাউন্ট যদি পরিপূর্ণ বেরিফাই না হলে হ্যাক হওয়ার ঝুকি থেকে যায়।
৭। অচেনা লোককে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠানো বা গ্রহণ করা হলে তা ঝুকিপূর্ণ। কারণ বর্তমানে ভূয়া আইডি দিয়ে ফেসবুক হ্যাক করে থাকে।
৮। ফেসবুকে দেওয়া ইমেল আইডি যদি সক্রিয় না থাকে তাহলে আইডি নষ্ট হওয়া বা হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।
৯। সিকিউরিটি হিসাবে আপনার ফেসবুক একাউন্টে যে ইমেল ব্যবহার করেন সে ইমেল আইডির পাসওয়ার্ড দুর্বল হলে অন্যরা সহজে পাসওয়ার্ড ভেঙ্গে ফেলতে পারবে। যার কারণে হ্যাক হতে পারে। ইত্যাদি

উল্লেখিত কারণ সমূহ লক্ষ্যকরে নিজের ফেসবুক একাউন্টকে যথাযথ নিরাপদে রাখুন। 

পোষ্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন। 

সবাইকে ধন্যবাদ এম.এন.সফট বিডির পক্ষ থেকে 



 

Md Munna MN

About Md Munna MN -

I am looking forward to work for a dynamic organization where my knowledge and skill will be rewarded and appreciated and where career is guaranteed. Good Communication skill and ability to do hard work honestly and dedicated to my own duties.

Subscribe to this Blog via Email :