Powered by Blogger.
Welcome to MN soft BD

Monday, April 1, 2019

Unknown

ফ্রিতে ছবি ডাউনলোডের সেরা ২০ টি সাইট। [Amazing picture free download 20 site]

আসসালামু‘আলায়কুম। আশা করি সবাই ভাল আছেন। আপনার যারা ডিজাইন বা বিজ্ঞাপনের ব্যনার তৈরী করেন তাদের জন্য আজকের পোষ্ট। আমরা যখন কোন বিজ্ঞাপন তৈরী করি তখন আমাদের বিভিন্ন ছবি প্রয়োজন হয়। আজকে আপনাদেরকে সেরা ফ্রিতে ছবি ডাউনলোড করার লিংক দিয়ে দিব । আপনারা ফ্রিতে ছবি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

1. StockSnap.io

StockSnap free stock photos

2. Pexels

Pexels free stock photos

3. Unsplash

Unsplash free stock photos

4. Burst (by Shopify)

Burst free stock photos

5. Reshot

Reshot free stock photos

6. Pixabay

Pixabay free stock photos

7. FoodiesFeed

Foodies feed free stock photos

8. Gratisography

Gratisography free stock photos

9. Freestocks.org

Freestocks.org free stock photos

10. Picography

Picography free stock photos

11. MMT STock

MMT Stock photos

12. Picjumbo

Picjumbo free stock photos

13. Kaboom Pics

Kaboom Pics stock photos

14. SkitterPhoto

Skitterphoto free stock photos

15. Life of Pix

Life of Pix free stock photos

16. Little Visuals

Little Visuals free stock photos

17. New Old Stock

New old stock photos

18. Jay Mantri

Jay Mantri free stock photos

19. Epicantus

Epicantus free stock photos

20. ShotStash

ShotStash free stock photos

Extra: StyledStock

StyledStock free stock photos

ভর্তি চলছে....

www.hcictg.com

Read More

Friday, March 29, 2019

HCI Channel

ফ্রি ই-কমার্স বা এফ-কমার্স ওয়ার্কসপ । [ Free eCommerce workshop 2019 ]


যারা ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে ব্যবসায় (ই-কমার্স বা এফ-কমার্স) করছেন বা করতে চাচ্ছেন, তাদের জন্য আমাদের মেলায় এই বিশেষ ওয়ার্কশপটি থাকছে।
এ ওয়ার্কশপে যেসকল বিষয় কভার করা হবে তা হলঃ
> ফেসবুক পেইজঃ কিভাবে ফেসবুক পেইজ খুলবেন এবং কিভাবে আপনার ব্যবসায় শুরু করবেন?
> ফেসবুক বুস্টঃ কিভাবে বুস্ট দিবেন এবং বুস্টের মাধ্যমে বিক্রয় বাড়াতে পারবেন?
> ফেসবুক কন্টেন্ট গাইডলাইনঃ কিভাবে ফেসবুক এলগরিদম ফ্রেন্ডলি কন্টেন্ট তৈরি করবেন?

এ ওয়ার্কশপে অংশ নিতে কোন টাকা দিতে হবে না, তবে রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক। আসন সংখ্যা নির্ধারিত হওয়ায় আপনাকে এসএমএস এর মাধ্যমে আপনার রেজিস্ট্রেশন কনফার্ম করা হবে।
রেজিস্ট্রেশন লিঙ্কঃ http://bit.ly/2HUf2F5
ওয়ার্কশপের সময়ঃ বিকেল ৪ টা থেকে ৫.৩০
Read More

Thursday, March 28, 2019

Unknown

রবির উদ্যোগ নিয়েছে ডেটাথন, নিবন্ধন শুরু [Registration process]

https://axiata.com/datathon/bd/index.html
দেশের ডেটা সায়েন্স কমিউনিটিকে একত্র করতে ডেটাথনের আয়োজন করতে যাচ্ছে রবি।
ডেটাথনে অংশগহণের জন্য ইতোমধ্যে নিবন্ধন শুরু হয়েছে। নিবন্ধন করা যাবে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত। আগ্রহী প্রার্থীরা এই সাইটে ভিজিট করে নিবন্ধন বাটনে চাপ দিলে একটি গুগল ফর্ম পাবেন। এরপর তাদের ওই ফর্মটি পূরণ করে নির্ধারিত প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।
শুধু ব্যক্তি হিসেবেই এতে নিবন্ধন করা যাবে। এরপর আয়োজকরা সংক্ষিপ্ত প্রার্থীদের তালিকা থেকে দল গঠন করবেন। প্রতিটি দলে থাকবে চার জন সদস্য। সংক্ষিপ্ত প্রার্থীদের তালিকা থেকে সদস্য বাছাই করে আলাদা আলাদা দল গঠন করা হবে। এরপর ১৬ এপ্রিল ইমেইলের মাধ্যমে প্রত্যেককে তাদের দল সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হবে। আগামী ১৯ থেকে ২০ এপ্রিল রাজধানীর রবি কর্পোরেট অফিসে ২৪ ঘন্টাব্যাপী এই ডেটাথন প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হবে। ডেটাথন বিজয়ীদের দেয়া হবে ৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার।
শিক্ষার্থী ছাড়াও ডেটা বিজ্ঞানী, প্রোগ্রামারসহ প্রোগ্রামিং জ্ঞানের অধিকারি গণিতবিদ, পরিসংখ্যানবিদ, ব্যবসা-বাণিজ্য বিশ্লেষক, কম্পিউটার প্রকৌশলী ও আইটি পেশাজীবীরা ডেটাথনে অংশ নিতে পারবেন।
ডেটাথনের ক্লাউড পার্টনার হিসেবে রয়েছে গুগল ও কারিগরি সহায়তায় আজিয়াটা অ্যানালিটিকস।

Read More

Thursday, March 7, 2019

Unknown

রোভার স্কাউটদের প্রয়োজনীয় বই সমূহ। [ Needed all books for Rover scouts ]

রোভার স্কাউট বন্ধুরা সবাইকে সালাম ও শুভেচ্ছা। যারা রোভার স্কাউটিং করে তাদের কাছে স্কাউটিং সম্পর্কিত বইপত্রগুলো অতিপ্রয়োজন। যার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে Abu Sayed Md. Akramuzzaman স্যার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে Rover Library নামে একটি গ্রুপ তৈরী করে সকল রোভার স্কাউটদের কাছে বইগুলো পাঠাতে অগ্রধিক ভূমিকা পালন করছে। রোভার স্কাউটদের প্রয়োজনীয় বইগুলো পর্যায়ক্রমে উক্ত গ্রুপে আপলোড করা হচ্ছে। নিচে চিত্রে ক্লিক করলে সরাসরি গ্রুপে প্রবেশ করা যাবে।
https://www.facebook.com/groups/2184040505245529/
 রোভার লাইব্রেরি সকল বই পেতে নিচের ডাউনলোড লিখায় ক্লিক করুন।
 
https://drive.google.com/drive/folders/19cpZdnvW2KWDWoXQXsARmVcAo_NSYR9J?fbclid=IwAR0T66FFWB3B0SauL_kcAkhcTQyh9kKIf1K69c7IezkSEgs4g87_eU4uyIY

Read More

Tuesday, February 26, 2019

Unknown

বাংলাদেশ স্কাউটস এর ট্রেনার্স হ্যান্ডবুক [Bangladesh scouts Trainer’s Handbook 1]

বাংলাদেশ স্কাউটস এর ট্রেনার্স হ্যান্ডবুক ১ Trainer’s Handbook 1  এর pdf ডাউনলোড করতে নিচের ডাউনলোড বোটামে ক্লিক করুন। ডাউনলোড করার পূর্বে যে নিবন্ধন ফরমটি প্রদর্শিত হবে তা স্টেপ অনুসারে পূরণ করতে হবে। ফরমটি সম্পূর্ণ পূরণ করে Submit করলে আপনি  ট্রেনার্স হ্যান্ডবুক ১ Trainer’s Handbook 1  এর pdf ডাউনলোড লিংক পাবে। উক্ত লিংক ক্লিক করে ফাইলটি ডাউনলোড করতে হবে।

[বিঃদ্রঃ শুধু মাত্র ট্রেনারদের ব্যবহারের জন্য। 

https://goo.gl/forms/mbBJCUPaJ4nmDGFO2
 

Read More
Unknown

স্কাউটদের কে যে ৭টি গেরো অবশ্যই জানতে হবে। [ The 7 knot that scouts must know ]

 

১। ডাক্তারী গেরো (Reef Knot)

ডাক্তারী গেরো (Reef Knot)  :  
ব্যবহার :  দুটি একই মাপের মোটা রশির  প্রান্ত জোড়া দেয়ার জন্য।

উপকরণ :  সমান মোটা দুটি রশির চলমান প্রান্ত ।
তৈরি কৌশল :  উভয় হাতে রানিং পার্ট এমন ভাবে ধরতে হবে যাতে সামনে সামনে বাড়তি থাকে  বাম হাতের প্রান্ত ডান হাতের উপর রেখে ডান হাত দিয়ে প্রান্তকে নিচের রশিতে ডানদিকে একটি প্যাচ দিয়ে উঠিয়ে বাম হাতের প্রান্তের উপর ডান প্রান্ত দিয়ে পূর্বের মত  প্যাচ দিয়ে ডাক্তারী গেরো দেয়া হয়। ইংরেজীতে  তৈরীর কৌশল ভাল ভাবে মনে রাখা যায়। (Left to the Right & Right to the Left)
 
 ২।বড়শী গেরো ( Clove  Hitch  )

বড়শী গেরো ( Clove  Hitch  ) 

ব্যবহারযেকোন দন্ডে রশি বাধা ও শেষ করার জন্য।


উপকরণ :  একটি লাঠি বা দন্ড এবং একটি রশি।

তৈরীর তৈরি কৌশল :  ডান হাতে চলমান প্রান্ত ধরে ঘড়ির কাটার উল্টা দিকে দন্ডে পেচ দিয়ে স্থির অংশের  নিচে দিয়ে এনে আবার উপর দিয়ে পেচিয়ে রানিং পার্টের মাথা সামনে এনে স্থির অংশের উপর দিয়ে ঐ রানিং পার্টের লুপের ভিতর পরিয়ে দিতে হবে।
 
৩। পাল গেরো (Sheet Bend )


 
ব্যবহার :  একটি  মোটা রশির সাথে চিকন রশি জোড়া দেয়ার  জন্য।


উপকরণ :  একটি  মোটা রশির চলমান প্রান্ত এবং একটি  চিকন রশির চলমান প্রান্ত।
তৈরি কৌশল : মোটা রশির প্রান্ত বাম হাতের উপর ধরে ঘড়ির কাটার উল্টো দিকে একটি বাইক তৈরি করতে হবে। চিকন রশির চলমান প্রান্ত ডান হাতে ধরে বাইটের নীচ দিয়ে উপরে উঠায়ে ঘড়ির কাটার দিকে অর্ধ পেচদিয়ে ঐ পেচের স্থির অংশের ভিতর দিয়ে পরিয়ে দিলে পাল গেরো দেয়া হয়।
 
৪। জীবন রক্ষা গেরো  (Bowline ) 


ব্যবহার :  উদ্ধার কাজ সম্পন্ন করার জন্য  বিশেষ করে  রোগীকে ওপর থেকে নিচে নামাবার বা নিচ থেকে ওপরে তোলা  বা পানি থেকে টেনে বা আগুন থেকে উদ্ধারের জন্য ।

উপকরণ :  একটি লম্বা রশি।
তৈরি কৌশল :   রশির চলমান প্রান্ত ডান হাতে ধরতে হবে। বাম হাতের  তালু উপরে দিয়ে সামনে যতদূর সম্ভব  প্রসারিত করে তালুর উপর দিয়ে রশিটির স্থির অংশ রেখে ডান হাত ডান দিকে উপরে প্রসারিত করে চলমান প্রান্ত ছেড়ে দিয়ে বাম হাতের ওপর রশির অংশ মধ্যমার ওপর  রেখে বৃদ্ধা আংগুল দিয়ে চেপে ধরতে হবে এবং ঐখানেই চলমান প্রান্তের অংশ দিয়ে ঘড়ির উল্টোদিকে ঘুরিয়ে একটি লুপ তৈরি করতে হবে এবং স্থির অংশ তর্জুনীর উপর রাখতে হবে। এবার ডান হাতে চলমান প্রান্ত ধরে লুপের নিচ দিয়ে ওপরে উঠিয়ে স্থির প্রান্তের নিচ দিয়ে ওপরে উঠিয়ে আবার লুপের ভিতর দিয়ে রশির সাথে একত্রে ডান হাত দিয়ে ধরতে হবে এবং বাম হাত দিয়ে স্থির প্রান্ত টান দিলে জীবন রক্ষা গেরো তৈরি করতে হয়। এই গেরো কোমরে দিয়েও অনুশীলন করা যায়।


৫। গুড়ি টানা গেরো (Timber Hitch)


ব্যবহার :  এক বা একাধিক  দন্ডের সাথে অতি সহজে রশি বাঁধা ও খোলা যায় এবং রশি টানার সাথে সাথে বাঁধন শক্ত হওয়ার জন্য।

 
উপকরণ : এক বা একাধিক  দন্ড এবং একটি লম্বা রশি।
 
তৈরি কৌশল : দড়ির চলমান প্রান্ত ডান  হাতে ধরে দন্ড/দন্ডগুলোকে ঘড়ির কাটার উল্টো দিকে একটি পেচ দিয়ে স্থির অংশের  নিচ দিয়ে এনে তার উপর দিয়ে চলমান প্রান্তকে বিপরীত দিকে নিয়ে নিজ দড়ির  সংগে ঘড়ির কাটার বিপরীত দিকে ৫-৭ বার পেচ দিয়ে পরিয়ে গুড়ি টানা গেরো দেয়া হয়।
 
৬। তাঁবু গেরো ( Round Turn & Two half Hitches )


ব্যবহার : রশিকে সহজে টেনে এবং সহজে ঢিলা করে বাধার জন্য ।


উপকরণ :  একটি দন্ড/পেগস/খুটি এবং তাঁবুর রশির প্রান্ত।

তৈরি কৌশল :  দন্ডের সংগে রশিকে ঘড়ির কাটার দিকে দু’টি পেচ দিয়ে স্থির অংশর উপর দু’টি অর্ধপেচ দিয়ে তাঁবুগেরো দিতে হয় । আমরা পেগের সংগে তাঁবুর গাই লাইন ও গাই রোপ এই গেড়ো ব্যবহার করে থাকি যাতে সকালে টেনে এবং সন্ধায় ঢিলা করে দিতে পারি। 


৭। ফিসার ম্যানস নট (Fisherman’s Knot) :  

ব্যবহার :  ভিজা অবস্থায় সমান মোটা দুটি রশিতে জোড়া দেয়ার জন্য ।
উপকরণ :  দু’টি সমান মোটা রশি।
তৈরি কৌশল :  দুটি মোটা রশির প্রান্তকে পাশাপাশি রেখে একটি প্রন্ত দিয়ে অপর প্রান্তের সাথে পরষ্পর থাম নট দিয়ে ফিসানম্যানস নট তৈরি করা হয়।
 
Read More
Unknown

স্কাউটদের প্রয়োজনীয় ল্যাশিং সমূহ (Scout lashing )

 স্কয়ার ল্যাশিং : ( Square lashing)


  
ব্যবহার : মাটির উপর খাড়াভাবে রাখা একটি বাঁশ বা দন্ডকে তার উপর আড়াআড়িভাবে বা প্রায় আড়াআড়িভাবে রেখে বাঁধার জন্য স্কয়ার ল্যাশিং ব্যবহার করা হয়।


উপকরণ :  রশি একটি এবং বাঁশ বা দন্ড ০২টি




তৈরি করার কৌশল : একটি বাঁশ বা দন্ডকে মাটির উপর  খাড়াভাবে রাখুন অপর একটি বাঁশ বা দন্ডকে আগের বাঁশ বা দন্ডের উপর আড়াআড়িভাবে রাখুন যে বাঁশ বা দন্ডকে মাটির উপর খাড়াভাবে রাখা হয়েছে সেটি হচ্ছেপোলএবং পোলের উপরে যে বাঁশ বা দন্ডকে আড়াআড়িভাবে রাখা  হয়েছে সেটি হচ্ছেবার এবারপোলএবংবারযেখানে মিলিত হয়েছে তার নিচের অংশের পোলে একটি ক্লোভ হিচ বা বড়শী গেরো বাঁধ এবার দড়ির চলমান অংশকেবারেরউপর দিয়েপোলকেপিছন দিক থেকে পেঁচিয়ে আবারবারেরউপর রাখতে হবে এরপর দড়ির চলমান অংশকে আবারপোলকেপিছন দিক থেকে পেঁচিয়ে আবারবারেরউপর রাখতে হবে এভাবে অন্তত:পক্ষে - ১০ বার আগের বর্ণনা অনুযায়ী দড়ির চলমান অংশ দিয়েপোলএবংবারকেজড়িয়ে প্যাঁচাতে হবেপোলকেপ্যাঁচানোর সময় দড়িকেপোলেরনিচে এবং উপরের প্রথমে যে দুটি প্যাঁচ দেয়া হয়েছিলো পরবর্তী পেঁচগুলি এই দুটির মধ্যে রাখতে হবে যাতে আস্তে আস্তেপোলেরএই অংশের ফাঁক বন্ধ হয়ে যায় বর্ণনা অনুযায়ীপোলএবংবারকে-১০ বার প্যাঁচান শেষ হলে দড়ির চলমান অংশ দিয়েপোল এবংবারেরমাঝে যে দড়ি আছে তাকে শক্ত করে অন্তত:পক্ষে - বার  পেঁচিয়ে যাও দড়ির এই অংশকে দড়ির চলমান অংশ দিয়ে পেঁচানকে ফ্রাপিং (FRAPPING) বলে ফ্রাপিং যত শক্ত হবে ল্যাসিং তত মজবুত বা শক্ত হবে ফ্রাপিং (FRAPPING) দেয়া শেষ হলে দড়ির চলমান অংশ দিয়েবারেক্লোভ হিচ বা বড়শী গেরো বেঁধে ল্যাশিং শেষ করতে হবে


ডায়গোনাল ল্যাশিং (DIAGONAL LASHING) 

ব্যবহার : একটি বাঁশ বা দন্ডকে অপর একটিবাঁশ বা দন্ডের উপর কোনাকুনিভাবে বা প্রায় কোনাকুনিভাবে রেখে বাঁধার জন্য ডায়াগোনাল ল্যাশিং ব্যবহার   করা হয় ।

উপকরণ : রশি একটি এবং বাঁশ বা দন্ড ০২টি
তৈরি করার কৌশল : একটি বাঁশ বা দন্ডকে অপর একটি বাঁশ বা দন্ডের উপর কোনাকুনিভাবে বা প্রায় কোনাকুনিভাবে( গু চিহ্নের মত) অবস্থায় রাখুন। এভাবে রাখার ফলে দু’টি বাঁশ বা দন্ড যেখানে একত্রিত হবে সেখানে দু’টি বাঁশ বা দন্ডকে একত্র করে একটি টিম্বার হিচ বা গুড়িটানা গেরো বাঁধুন। এবার দড়ির চলমান অংশের দিক পরিবর্তন করে অর্থাৎ দড়ির চলমান অংশকে বাইটের দিক নিয়ে দুই বাঁশ বা দন্ডকে একত্র করে ৫-৭ বার প্যাঁচ দিন । এরপর যে দিক থেকে আগে পেঁচিয়েছেন তার বিপরীত দিক থেকে দুই বাঁশ বা দন্ডকে একত্র করে আগের মত ৫-৭ বার প্যাঁচ দিন। এভাবে দু’দিক দিয়ে প্যাঁচান শেষ হলে বাঁশ বা দন্ডের মাঝে দড়ির যে অংশ আছে তাকে দড়ির চলমান অংশ দিয়ে শক্ত করে অন্তত:পক্ষে ৩-৪ বার প্যাঁচ দিন ।দুই বাঁশ বা দন্ডের মাঝখানের দড়িকে দড়ির চলমান অংশ দিয়ে প্যাঁচানকে ফ্রাপিং (FRAPPING) বলে । ফ্রাপিং যত শক্ত হবে ল্যাশিং তত মজবুত বা শক্ত হবে । ফ্রাপিং দেয়া শেষ হলে যে কোন একটি বাঁশ বা দন্ডের সাথে দড়ির চলমান অংশ দিয়ে ক্লোভ হিচ বা বড়শী গেরো বেঁধে ডায়গোনাল ল্যাশিং শেষ করতে হবে । 

পোল তৈরি (POLE LASHING)  :
ব্যবহার :  একটি বাঁশ বা দন্ডকে অপর একটি বাঁশ বা দন্ডের সাথে
বেঁধে তাকে লম্বা করার জন্য এই ল্যাশিং ব্যবহার করা হয়।

উপকরণ :  বাঁশ বা দন্ড ০২টি এবং রশি ০২টি ।
তৈরি করার কৌশল :  একটি বাঁশ বা দন্ডের মাথায় ২০ সে:মি: নিচে এবং অপর একটি বাঁশ বা দন্ডের নিচের অংশ রেখে বাঁশ বা দন্ডকে পাশাপাশি স্থাপন করে নিচে রাখা বাঁশ বা দন্ডটি যেখানে উপরের বাঁশ বা দন্ডের সাথে মিলিত হয়েছে তার ৪-৫ সে:মি: ওপরে দু’টি বা দন্ডকে একত্রিত করে সেখানে  রশির স্থির প্রান্ত দিয়ে একটি বড়শী গেরো বাঁধতে হবে। বড়শী গেরো বাঁধার পর রশির বাড়তি অংশ দিয়ে দুই বাঁশ বা দন্ডকে একত্র করে নিচ থেকে উপরের দিকে পেঁচিয়ে যান। ৮-১০ বার প্যাঁচান হয়ে গেলে বাঁশ বা দন্ডকে একত্র করে ক্লোভহিচ বা বড়শী গেরো বেঁধে ল্যাশিং শেষ করতে হবে।
এরপর নিচের বাঁশ বা দন্ডটি ওপরের বাঁশ বা দন্ডের সাথে যেখানে মিলিত হয়েছে এবং যেখানে নিচের বাঁশ বা দন্ড শেষ হয়েছে  তার ৪-৫ সে:মি: নিচ থেকে দুই বাঁশ বা দন্ডকে একত্র করে পূর্বের মত ল্যাশিং বাঁধতে হবে।
এভাবে পোল তৈরি করার জন্য পোল এন্ড শেয়ার ল্যাশিং বাঁধতে হয়। এক বা একাধিক বাঁশ বা দন্ডকে একত্রে জোড়া দিয়ে লম্বা করার জন্য পোল এন্ড শেয়ার ল্যাশিং ব্যবহার করা হয়। অনেক সময় এই ল্যাশিংকে পোল ল্যাশিংও বলা হয়ে থাকে।

পোল এন্ড শিয়ার ল্যাশিং (POLE & SHEER LASHING) :
দুটি বাঁশ বা দন্ডকে একত্রে বেঁধে তাকে পায়া হিসাবে ব্যবহার করার জন্য অথবা একটি বাঁশ বা দন্ডকে অপর একটি বাঁশ বা দন্ডের সাথে বেঁধে তাকে লম্বা করার জন্য এই ল্যাশিং ব্যবহার করা হয় । যখন দু’টি বাঁশ বা দন্ডকে মাথার দিকে একত্রে বেঁধে তাকে পায়া হিসাবে ব্যবহার করা হয় তখন তাকে শিয়ার লেগ বলে এবং যখন একটি বাঁশ বা দন্ডকে অপর একটি বাঁশ বা দন্ডের সাথে একত্র বেঁধে তাকে লম্বা করা হয় তখন তাকে পোল বলে। মূলত: শিয়ার লেগ এবং পোল তৈরির জন্য একই ল্যাশিং ব্যবহার করা হয়। শিয়ার লেগ বা পোল তৈরির জন্য একই ল্যাশিং ব্যবহার করা হলেও এদের মধ্যে যে পার্থক্য আছে সেটি হচ্ছে শিয়ার লেগ তৈরির জন্য ফ্রাপিং দিতে হয় এবং পোল তৈরীর জন্য ফ্রাপিং দিতে হয় না।

শিয়ার লেগ তৈরি (SHEER LEG MAKING) :
ব্যবহার :  দুটি বাঁশ বা দন্ডকে একত্রে বেঁধে তাকে পায়া হিসাবে ব্যবহার করার জন্য।
 
উপকরণ :  বাঁশ বা দন্ড ০২টি এবং লশি ০১টি।
তৈরি কৌশল :  দু’টি বাঁশ বা দন্ডের নিচের অংশ সমান্তরাল রেখায় রেখে দু’টি বাঁশ দন্ডকে একত্র করে উপরের যে কোন একটি বাঁশ বা দন্ডে দড়ির স্থির প্রান্ত দিয়ে একটি ক্লোভ হিচ বা বড়শী গেরো বাঁধুন। ক্লোভ হিচ বা বড়শী গেরো বাঁধার  পর দড়ির স্থির প্রান্তের যে বাড়তি অংশ থেকে যাবে তাকে  দড়ির চলমান অংশের সাথে পেঁচিয়ে দাও। এবার দড়ির   চলমান অংশ
দিয়ে দু’টি বাঁশ বা দণ্ডকে একত্র করে পেঁচিয়ে পেঁচিয়ে নিচ থেকে উপরে চলে যান । লক্ষ্য রাখবেন যেন দুই বাঁশ বা দণ্ডের সাথে প্যাঁচানোর সময় একটি দড়ি যেন অপর দড়ির সাথে লেগে থাকে,একটি দড়ি যেন  অপর একটি দড়ির উপরে উঠে না যায় এবং সেখানে যেন কোন ফাঁক না থাকে। ৮-১০ বার প্যাঁচান শেষ হলে দুই বাঁশ বা দন্ডের মাঝখানে দড়ির যে অংশ আছে তাকে দড়ির চলমান অংশ দিয়ে শক্ত করে অন্তত:পক্ষে ৩/৪ বার পেঁচিয়ে দিন। দুই বাঁশ বা দন্ডের মাঝখানের দড়িকে দড়ির চলমান অংশ দিয়ে প্যাঁচানকে ফ্রাপিং বলে। ফ্রাপিং যত শক্ত হবে ল্যাশিং তত মজবুত বা শক্ত হবে। ফ্রাপিং দেয়া শেষ হলে প্রথমে যে বাঁশ বা দন্ডে ক্লোভ হিচ বা বড়শী গেরো দিয়ে ল্যাশিং শুরু করেছিলেন তার বিপরীত বাঁশ বা দণ্ডে ক্লোভহিচ বা বড়শী গেরো বেঁধে ল্যাশিং শেষ করুন। এভাবে শেয়ার লেগ তৈরি করার জন্য পোল এন্ড শেয়ার ল্যাশিং ব্যবহার করা হয়। অনেকে এই ল্যাশিংকে কেবলমাত্র শেয়ার ল্যাশিং বলে।



 

Read More